অতীতে কখন ও কি কি কারণে হজ বাতিল হয়েছে

১৫ জুন ২০২০, ০৫:৫২
অনুসন্ধান ডেস্ক

বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো সৌদি আরবেও করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব রয়েছে। এখন অবধি দেশটিতে লাখের অনেক বেশি আক্রান্তের সংখ্যা নিশ্চিত হওয়া গেছে।

তবে হজ বাতিল করা মানে বিশ্বজুড়ে দেশ ও বহু ব্যবসায়ের জন্য ব্যাপক অর্থনৈতিক ক্ষতি হবে। লক্ষ লক্ষ মুসলমান প্রতি বছর এই দেশটিতে যান এবং ১৯৩২ সালে সৌদি কিংডম প্রতিষ্ঠার পর থেকে এই হজ জামাত বাতিল করা হয়নি।

তবে বিদ্যমান মহামারির মতোই প্লেগ ও কলেরা রোগ বা অন্যান্য প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে ইতিহাসে হজ বাতিলের ঘটনা আগেও ঘটেছে।

বার্তা সংস্থা এপির খবরে বলা হয়েছে, প্লেগ ও কলেরা রোগের মহামারির কারণে প্রথমবারের মতো ৯৬৭ খ্রিস্টাব্দে এবং ফাতিমিদ সাম্রাজ্যের আমলে ১০৪৮ খ্রিস্টাব্দে খরা ও দুর্ভিক্ষের ফলে পায়ে হেঁটে হজ পালন বাতিল করে দেয়া হয়েছিল।

এদিকে, উনিশ শতক জুড়ে একাধিক বার হজ চলাকালীন সময়ে কলেরার প্রকোপে হাজার হাজার হজযাত্রী মারা গিয়েছিল।

১৮৫৮ সালে পবিত্র শহর মক্কা ও মদিনায় কলেরা মহামারির মতো ছড়িয়ে পড়লে হাজার হাজার মিশরীয়কে লোহিত সাগরের সীমান্তে পালিয়ে আসতে হয়েছিল। তাদেরকে দেশে ঢুকতে দেয়ার আগে কোয়ারেন্টাইনে যেতে বাধ্য করা হয়েছিল।

ঊনিশ শতকের বেশিরভাগ সময়ে এবং ২০ শতকের শুরুতে কলেরা মহামারিতে পরিণত হয়েছিল এবং বেশ কয়েক বছর হজ বাতিলে বাধ্য হয়েছিল কর্তৃপক্ষ।

প্লেগের কারণেও ইতিহাসে হজ বাতিলের ঘটনা ঘটেছে। ১৮৩১ সালে ভারতে কলেরা মহামারি হিসেবে দেখা দিলে হজ পালনে গিয়ে যাত্রাপথে হাজার হাজার হজযাত্রীর মৃত্যু হয়।

এমন বাস্তবতায় ঘন ঘন মহামারির প্রাদুর্ভাবের কারণে উনিশ শতকের মাঝামাঝিতে প্রায়শই হজ বাতিলে ঘটনা ঘটে।

মন্তব্য লিখুন :