২০ বিচারকসহ আদালতের ১০৩ কর্মকর্তা করোনায় আক্রান্ত

২০ জুন ২০২০, ২১:০০
অনুসন্ধান ডেস্ক

ভার্চুয়াল আদালতে কাজ করতে গিয়ে শনিবার পর্যন্ত অধস্তন আদালতের ২০ জন বিচারক, ৫৯ কর্মী এবং সুপ্রিম কোর্টের ২৪ কর্মকর্তা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের বিশেষ কর্মকর্তা ও মুখপাত্র মো. সাইফুর রহমান বলেন, ‘কোভিড-১৯ উপসর্গ নিয়ে আইসোলেশনে আছেন আরও ৬ জন বিচারক।’

তিনি জানান, বর্তমানে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত অধস্তন আদালতের ১৫ বিচারক বাসায় চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

সুপ্রিম কোর্টের মুখপাত্র জানান, জানান, নওগাঁ জেলা জজ আদালতের অফিস সহকারী মহিউদ্দিন মোহন ও মাদারীপুর জজ আদালতের জারিকারক মো. কাউসার যথাক্রমে শুক্র ও বৃহস্পতিবার কোভিড -১৯ উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন।

এদিকে, লালমনিরহাটের মহিলা ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক (জেলা জজ) ফেরদৌস আহমেদ করোনায় আক্রান্ত হয়ে ঢাকা সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৮ এর বিচারক (সিনিয়র জেলা জজ) বেগম শামীম আহমেদ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (ঢামেকে) চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

অন্যদিকে, জয়পুরহাটের মহিলা ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. রুস্তম আলী রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট বিচারক ও অন্যান্য আদালতের কর্মকর্তাদের চিকিৎসা বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট জেলা জজদের আহ্বান জানানো হয়েছে বলে সাইফুর রহমান জানিয়েছেন।

বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিদের করোনা সংক্রান্তে সার্বক্ষণিক যোগাযোগের জন্য সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেলের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

এছাড়াও, অধস্তন আদালতের বিচারকদের চিকিৎসা সংক্রান্ত বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের রেজিস্ট্রারের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের আরেকটি কমিটি দায়িত্ব পালন করছে।

প্রসঙ্গত, দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় মহামারি করোনাভাইরাসে তিন হাজার ২৪০ জন আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত এবং ৩৭ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

এ পর্যন্ত দেশে করোনায় মোট আক্রান্ত হয়েছেন এক লাখ আট হাজার ৭৭৫ জন এবং মারা গেছেন এক হাজার ৪২৫ জন। আক্রান্তের ক্ষেত্রে মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৩১ শতাংশ।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য মতে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ১৩ হাজার ৭৭৯টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। আর পরীক্ষা করা হয় ১৪ হাজার ৩০১টি নমুনা। এতে নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন তিন হাজার ২৪০ জন বা ২৩ দশমিক ০৯ শতাংশ। এ নিয়ে মোট নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে পাঁচ লাখ ৯৬ হাজার ৫৭৯টি।

এদিকে, করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন আরও এক হাজার ৪৮ জন। যার ফলে দেশে মোট সুস্থ ব্যক্তির সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪৩ হাজার ৯৯৩ জন। এখন পর্যন্ত সুস্থতার হার ৪০.৪৪ শতাংশ।

দেশে গত ৮ মার্চ প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয় এবং প্রথম মৃত্যুর ঘটনা ঘটে ১৮ মার্চ।

মন্তব্য লিখুন :